অপারেশান সেভিং বাঙালিজ

"দেশের শান্তিপ্রিয় নিরপরাধ জনগণ আমাদের *প্রতিপক্ষ* নন: খালেদা জিয়া" (খবরের লিংক)

.....আধুনিক মিডিয়া প্রযুক্তির কল্যাণে এটা নিশ্চিত, নভেম্বর (২০১৩) থেকে শুরু হওয়া "বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোটের" ডাকা হরতাল-অবরোধে তাদের পিকেটাররা ৭০০'র অধিক বাঙালীকে পুড়িয়ে, বোমা হামলা করে হত্যা করেছে এবং আরো ৭২,০০০'র অধিক বাঙালীকে আহত করেছে অর্থাৎ, "বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোট" বাংলাদেশে গণহত্যা চালাচ্ছে।



এর আগে মির্জা ফখরুল স্বীকার করেছিল "বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোট" বাংলাদেশে গণহত্যা চালাচ্ছে। (খবরের লিংক)
এবার, "বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোটের" প্রধান স্বীকার করে নিল যে, তার নেতৃত্বাধীন জোট বাংলাদেশে গণহত্যা করছে।

খালেদা জিয়া উপরে উদ্ধৃত বাক্যটির মাধ্যমে স্বীকার করছেন, বর্তমানে বাংলাদেশে সহিংসতা চলছে আর এই সহিংসতা তার অনুগতরা করছে।
এখানে ব্যবহৃত "প্রতিপক্ষ" শব্দটি দ্বারা স্পষ্টত:ই খালেদা জিয়া বুঝিয়ে দিচ্ছেন, তার জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধে জোটে পিকেটাররা প্রতিপক্ষকে পুড়িয়ে ও বোমা মেরে হত্যা করছে।
এবং, খালেদা জিয়ার দৃষ্টিতে এই প্রতিপক্ষ "অশান্তিপ্রিয় এবং দোষযুক্ত জনগণ"।

হরতাল অবরোধে যাদের হত্যা ও আহত করা হয়েছে, এদের মাঝে আছে গর্ভবর্তী নারী, শ্রমিক, খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ, শিক্ষার্থী তথা, একদম আমজনতা বা, সাধারণ বাঙালী; যারা জীবন-জীবিকার প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হয়েছিলেন।
খালেদা জিয়া বক্তব্য অনুসারে এই আমজনতা তথা, সাধারণ বাঙালীরা "অশান্তিপ্রিয় এবং দোষযুক্ত"; অর্থাৎ, খালেদা জিয়ার মতে, "প্রতিপক্ষটি" হলো, বাঙালী...এই দেশের নাগরিক।

সারাংশে আমরা বলতে পারি, "বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোট" প্রধান নিজেই স্বীকার করে নিলেন, বাঙালী তথা, বাংলাদেশের নাগরিককে তিনি ও তার দল প্রতিপক্ষ ভাবেন এবং সেকারণে তাদের পিকেটাররা অবরোধ-হরতালে বাঙালীদের গণহত্যা করছে।

এর আগে জোটের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল এবং এখন জোট প্রধান খালেদা জিয়া স্পষ্ট ঘোষণা দিয়েছে যে, "বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোট" বাংলাদেশে বাঙালী গণহত্যা করছে।

একাত্তর থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত হিসেব করলে, এটি বাংলাদেশে "চতুর্থ বাঙালী গণহত্যা"।
একটি দেশের জনগণকে "একটি গোষ্ঠী" যখন "প্রতিপক্ষ" ভেবে হত্যা করা শুরু করে, তখন, সাংবিধানিকভাবে, সেই দেশের নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা বাহিনীর এটি কর্তব্য হয়ে যায় যে, জনগণকে "সেই গোষ্ঠীর" হাত থেকে বাঁচানো।

"বিএনপি-জামাত-১৮ দলীয় জোট" তথা, "বাংলাস্তানীদের" হাত থেকে "বাঙলা ও বাঙালীদের" বাঁচানোর জন্য বাংলাদেশ সরকারের এখন উচিত নিরাপত্তা বাহিনীর প্রতি "পিকেটিংরত অবস্থায় দেখা মাত্র পিকেটারদের লক্ষ্য করে গুলি করার" আদেশ জারি করা।

"অপারেশন সেভিং বাঙালীজ" এখন সময়ের দাবি...

Comments

Popular posts from this blog

মুক্তিযুদ্ধে নারী নির্যাতনে পাকিস্তানি মানস

অপারেশন সার্চলাইটঃ একটি পরিকল্পিত গণহত্যার সূচনা

বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডে চীনের ভূমিকা ও ভাসানীর দায়